আওয়ামীলীগ একটি অভিশপ্ত দল..একি বললেন সাবেক এমপি ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি

Anamika

Publish Date :
Publish On : 3 months ago

সুখবর! সুখবর! সুখবর! www.youtopvideo.com চ্যানেল থেকে যেকোন ভিডিও একদম ফ্রি ডাউনলোড করে অফনেটে সারাদিন দেখার সুবিধা একমাত্র আমরাই দিচ্ছি। Please Everybody Like, Share and Comments on this video and wait for next videos. You can get more update, Please visit our website : www.youtopvideo.com আওয়ামী লীগ একটি অভিশপ্ত দল.. ছাত্রলীগের সাবেক প্রেসিডেন্ট সাবেক সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট ফজলুর রহমান। আমি আওয়ামীলীগ করতাম, কিন্তু এখন করি না। জীবন যৌবনের ৩২টি বছর আওয়ামীলীগে কাটিয়েছি। ছাত্রলীগ থেকে আওয়ামীলীগ। • আমি ছাত্রলীগের সেন্ট্রাল প্রেসিডেন্ট ছিলাম। • সেন্ট্রাল এক্সিকিউটিভ কমিটির মেম্বার ছিলাম। • দলের সংসদ সদস্য ছিলাম। সেই দলটি ছেড়ে এসেছি এবং আমি সেই দলটিকে অভিশপ্ত দল এই কারণে বলেছি, এই আওয়ামীলীগ ২৩ জুন, ১৯৪৯ ঢাকার এয়ার মোহাম্মদ খানের বাড়ী রোজ গার্ডেনে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো। • প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মরহুম মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী আওয়ামীলীগ করে মরতে পারেন নাই। • দলের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক সামসুল হক। বাড়ী টাঙ্গাইল। বিখ্যাত পন্নি পরিবারের খুররম খান পন্নিকে ১৯৪৯ সনের উপনির্বাচনে পরাজিত করেছিলেন। সেই সামসুল হক আওয়ামীলীগ করতে করতে পাগল হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। • সিলেটের মানুষ, মহান সন্তান, মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি যিনি সেনাবাহিনী থেকে অবসর নেয়ার সঙ্গে সঙ্গে ৭০ সনে আওয়ামীলীগে নিজের নাম লিখিয়েছিলেন তার নাম এমএজি ওসমানী। তিনিও কিন্তু শেষপর্যন্ত আওয়ামীলীগ করে মৃত্যুবরণ করতে পারেননি। • ১৯৬২ সনে যখন আইয়ুবের আমলে ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠিত হয়, শাহ্ মুয়াজ্জেম ছিলেন ছাত্রলীগের তখনকার প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট। শাহ্ মুয়াজ্জেম সাহেব আওয়ামীলীগ করতে পারেন নাই। • তার পরের প্রেসিডেন্ট ছিলেন উবায়দুর রহমান। তিনি বিএনপি করে মৃত্যুবরণ করেছেন। • সিরাজুল আলম খান যাকে বলা হয় স্বাধীনতার রূপকার। ছাত্র যুবকদের মধ্যে যিনি স্বাধীনতার বীজ উজ্জীবিত করেছিলেন। আমি আমার অনামিকার আঙুল কেটে তার সামনে রক্ত-শপথ করেছিলাম তৎকালীন ইকবাল হল আজকের জহুরুল হলের সেই পুকুরের পাড়ে। সেই সিরাজুল আলম খান কিন্তু শেষ পর্যন্ত আওয়ামীলীগ করতে পারেননি। • তারপরের প্রেসিডেন্ট ছিলেন জনাব মাজহারুল হক বাকী। গণফোরাম করেছেন এবং অজানা অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন। • জনাব আব্দুর রাজ্জাক যিনি দুই দুই বার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। অত্যন্ত অসহায় অবস্থায় দুঃসহ বেদনা নিয়ে পৃথিবী থেকে চলে গেছেন। আওয়ামীলীগ তার সঙ্গে যে নিষ্ঠুর দুর্ব্যবহার করেছে তা তুলনাহীন।

Related Videos

CLOSE
CLOSE